সর্বশেষ:
১২ বছর পর নিজ বাসায় গিয়াস উদ্দিন মামুন, শেষ বারের মত দেখলেন মায়ের মুখ

১২ বছর পর নিজ বাসায় গিয়াস উদ্দিন মামুন, শেষ বারের মত দেখলেন মায়ের মুখ

অবশেষে প্যারলে মুক্তি পেয়ে ১২ বছর পর বাসায় আসলেন অর্থ পাচার মা’মলায় দ’ণ্ডিত বিতর্কিত ব্যবসায়ী, বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের বন্ধু গিয়াসউদ্দিন আল মামুন। মায়ের মৃ’ত্যুর জন্য আজ ২৬ সেপ্টেম্বর বৃহস্পতিবার সকাল ৯টায় প্যারোলে মুক্তি পান তিনি।

এদিকে মামুনের পরিবারের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে আজ বৃহস্পতিবার তাকে প্যারলে মুক্তি দেয় কেরানীগঞ্জের কেন্দ্রীয় কারা কর্তৃপক্ষ। সকাল ৯টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত প্যারলে মুক্তি দেওয়া হয় তাকে। গিয়াস উদ্দিন আল মামুনের মুক্তির বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন কেরানীগঞ্জে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের ডেপুটি জে’লার জাহিদুল ইস’লাম।

এ ব্যাপারে তিনি জানান, প্যারোলের শর্ত অনুযায়ী নির্দিষ্ট এলাকার বাইরে যেতে পারবেন না গিয়াস আল মামুন। তাকে সার্বক্ষণিক পু’লিশ পাহারায় রাখা হবে। প্যারোলের সময় শেষ হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে তাকে কারাগারে নিয়ে আসা হবে।

এদিকে জানা যায়, ১২ বছর ধরে কারাগারে থাকা মামুন প্যারলে মুক্ত হয়েই রাজধানীর শের-ই বাংলা নগরে শুক্রাবাদের বাসায় যান। শুক্রাবাদ জামে ম’সজিদে তার মায়ের জানাজা অনুষ্ঠিত হবে।

এ ব্যাপারে মামুনের পরিবার জানিয়েছে, সময় স্বল্পতার কারণে জানাজায় অংশগ্রহণ করলেও বনানী কবরস্থানে মায়ের দাফনের জন্য যেতে পারেন তিনি। এরপর কিছু সময় তিনি শুক্রবাদের বাসায় ছিলেন। পরে দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে মামুনকে কেরানীগঞ্জের কেন্দ্রীয় কারাগারের উদ্দেশে নিয়ে যায় পু’লিশ।

এর আগে বার্ধক্যজনিত কারণে গত বুধবার ভোরে রাজধানীর একটি হাস*পাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গিয়াসউদ্দিন আল মামুনের মা মোসাম্মত হালিমা খাতুন মা’রা যান। মায়ের মৃ’ত্যুতে মামুনের প্যারোলে মুক্তি চেয়ে আবেদন করেন তার ভাই জালাল উদ্দিন রুমী।
পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, শুক্রাবাদের পৈত্রিক নিবাসসংলগ্ন সরকারি কলোনি ম’সজিদ মাঠে জানাজা শেষে বনানী কবরস্থানে মামুনের বাবা জয়নাল আবেদীনের কবরের পাশে মা হালিমা খাতুনকে সমাহিত করা হয়।

এদিকে বিএনপি নেতা তারেক রহমানের বন্ধু ও ব্যবসায়িক অংশীদার গিয়াস উদ্দিন আল মামুন জরুরি অবস্থার মধ্যে ২০০৭ সালের ৩১ জানুয়ারি গ্রে’প্তার হন। তখন থেকেই তিনি কারাগারে আছেন।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2019 kantarpollinews
Design BY NewsTheme