সৌদিতে বাসে আ’গুনে পুড়ে নি’হতদের মধ্যে বাংলাদেশি আপন দুই ভাই

সৌদিতে বাসে আ’গুনে পুড়ে নি’হতদের মধ্যে বাংলাদেশি আপন দুই ভাই

সৌদি আরবে ওম’রাহ যাত্রী বহনকারী একটি বাসে আ’গুন লেগে নি’হত ৩৫ যাত্রীর মধ্যে নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ উপজে’লার কাঞ্চন পৌরসভার দুই সহোদর রয়েছেন। এ ঘটনায় একই বাসে থাকা তাদের ছোট ভাই আ’হত হয়েছেন। গত বুধবার (১৭ সেপ্টেম্বর) ম’দিনা থেকে প্রায় ১৭০ কিলোমিটার দূরে হিজরা রোডে এ দুর্ঘ’টনা ঘটে।

bdbarta21
bdbarta21
bdbarta21
bdbarta21

নি’হত দুই সহোদর হলেন- কাঞ্চন পৌরসভার ৮নং ওয়ার্ডের কলাতলী এলাকার হাবিব উল্লাহ্ মিয়ার ছেলে বড় ছেলে আব্দুল হালিম (৩২) ও মেজো ছেলে দ্বীন ইস’লাম (২৮) । এ সময় একই বাসে থাকা ছোট ছেলে ইস’লাম উদ্দিন (২৫) আ’হত অবস্থায় সৌদি আরবের একটি হাস*পাতালে ভর্তি আছেন।

গত বুধবার বাংলাদেশ সময় বেলা ১১টার দিকে আ’হত ছোট ছেলে ইস’লাম উদ্দিন মোবাইল ফোনে তার পরিবারকে এ খবর জানান।

bdbarta21
bdbarta21
bdbarta21
bdbarta21

এদিকে একসঙ্গে দুই ভাইয়ের মৃ’ত্যুর খবরে তাদের পরিবারে চলছে শোকের মাতম। নি’হতদের পরিবার ও স্বজনদের কা’ন্নায় বাতাস ভারি হয়ে উঠেছে এলাকার পরিবেশ। এলাকার আশপাশের শতশত লোকজন তাদের বাড়িতে সমবেদনা জানাতে আসছে।

ছোট ভাই ইস’লাম উদ্দিনের বরাত দিয়ে বোন সীমা আক্তার জানান, গত বুধবার কাজ শেষে জিহরা এলাকা থেকে ম’দিনায় ফেরার জন্য তারা ওম’রা যাত্রীবোঝাই একটি গাড়িতে চড়েন। তারাসহ মোট ৩৯ জন যাত্রী নিয়ে বাসটি গন্তব্যস্থলে আসতেছিল। স্থানীয় সময় রাত ৭টার দিকে ম’দিনা থেকে প্রায় ১৭০ কিলোমিটার দূরে হিজরা রোডে একটি লোডারের সঙ্গে ধাক্কা লাগলে বাসটিতে আ’গুন ধরে যায়।

bdbarta21
bdbarta21
bdbarta21
bdbarta21

এতে ঘটনাস্থলেই আব্দুল হালিম ও দ্বীন ইস’লামসহ ৩৫ যাত্রী মৃ’ত্যুবরণ করেন। গুরুতর আ’হত হন ইস’লাম উদ্দিনসহ আরও কয়েকজন। তাদের স্থানীয় আল হামনা হাস*পাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

সীমা আক্তার আরও জানান, দীর্ঘদিন ধরে তার তিন ভাই আব্দুল হালিম, দ্বীন ইস’লাম ও ইস’লাম উদ্দিন জীবিকার তাগিদে সৌদি আরবে বসবাস করে আসছেন। তারা সেখানে ঠিকাদারি কাজ করত।

bdbarta21
bdbarta21
bdbarta21
bdbarta21

নি’হত আব্দুল হালিমের আলাউদ্দীন নামে ৩ মাসের একটি ছেলে সন্তান রয়েছে ও দ্বীন ইস’লামের ১৪ মাসের হালিমা আক্তার নামে একটি কন্যা সন্তান রয়েছে।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2019 kantarpollinews
Design BY NewsTheme