৭১ বছর বয়সে বাবা হলেন আ’ত্মবিশ্বাসী তোতা মিয়া

৭১ বছর বয়সে বাবা হলেন আ’ত্মবিশ্বাসী তোতা মিয়া

ময়মনসিংহের মুক্তাগাছা উপজেলার তারাটি ইউনিয়নের কলাদিয়া গ্রামের হাবিবুর রহমান তোতা মিয়া নিজেকে স্বা’বলম্বী, স্ব’নির্ভর করে গড়ে তুলে আ’ত্মবিশ্বাসী হয়ে বিয়ে পিঁ’ড়িতে বসতে সময় নিয়েছেন ৬৯ বছর। দুই বছর না পেরোতেই ৭১ বছর বয়সে ছেলে সন্তানের বাবা হয়ে সবাইকে তাক লাগিয়ে দিয়েছেন তিনি।

পরিবারের সাত ভাই বোনের মধ্যে সর্বক’নিষ্ঠ হাবিবুর রহমান তোতা মিয়া বর্তমানে তিনি ২০ একর জমির মালিক। নিজের গ্রামের মানুষের সু’বিধার্থে প্রতিষ্ঠা করেছেন নিজ নামে সরকারি প্রাথমিক স্কুল, কওমি মাদ্রাসা, জামে মসজিদ, কব’রস্থান, ঈদগাহ মাঠ। এছাড়াও একটি কলেজ ও বৃ’দ্ধাশ্রম গড়ে তুলতে নিজে দুই একর জমি দান করেছেন তিনি।

bdbarta21
bdbarta21
bdbarta21
bdbarta21

নিজ এলাকাসহ পার্শ্ববর্তী এলাকায় এক নামে চেনা হাবিবুর রহমান তোতা মিয়ার এতো কিছু করার উদ্দেশ্য ছিল একটাই জীবনে স্বাব’লম্বী, স্ব’নির্ভর ও আ’ত্মবিশ্বাসী হলেই বিয়ে করবেন। এভাবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করতে তার দীর্ঘ সময় চলে গেছে। শেষে ৬৯ বছর বয়সে বিয়ে কথা ভাবেন তিনি। কিন্তু এ বয়সে চাইলেই পাত্রী কোথায় পাবেন ?

bdbarta21
bdbarta21
bdbarta21
bdbarta21

তার সেই সাধও পূরণ করেছেন একই উপজেলার কুমারগাতা ইউনিয়নের মনতলা গ্রামের ২৩ বছর বয়সী আকলিমা খাতুন। দরিদ্র পরিবারের এক কন্যা সন্তানের জননী স্বামী পরিত্য’ক্তা আকলিমা খাতুন সম্মত হন তোতা মিয়াকে বিয়ে করতে। শেষে ৬৯ বছর বয়সে তোতা মিয়ার বিয়েও হলো। আর বিয়ের দুই বছরের মধ্যেই অর্থাৎ চলতি বছরের ১৮ জুলাই এ দ’ম্পতি এক ছেলে সন্তান জন্ম দেন।

আ’ত্মবিশ্বাসী হাবিবুর রহমান তোতা তার সন্তানের নাম রেখেছেন ‘মো.আল রহমত উল্লাহ’।

bdbarta21
bdbarta21
bdbarta21
bdbarta21

হাবিবুর রহমান জানান, ‘শৈশব থেকে স্বাবলম্বী হয়ে উঠতে আমাকে অনেক ধাপ পার হতে হয়েছে। শুধুমাত্র কৃষি কাজের মাধ্যমে ‘কলা, আলু চাষাবাদ করে আমি আজ সম্পদের মালিক হয়েছি। মানুষের কল্যাণে প্রতিষ্ঠান গড়ে তুলেছি। এজন্য আমাকে ক’ঠোর প’রিশ্রম করতে হয়েছে। সফল হতে গেলে বয়স লাগে না।’

শিশুটির বিষয়ে বলেন, ‘ওকে নিয়েই আমার এখন সবচেয়ে বেশি সময় কাটছে। ওই এখন আমার জীবনের নি’র্ভরযোগ্য ব’ন্ধন।’

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2019 kantarpollinews
Design BY NewsTheme